top of page

মাতা প্রভাবতী দেবীকে সুভাষচন্দ্রের লিখিত চিঠি

Listen to this Podcast for Free from our YouTube channel :

Voice Over - Abhinaba Bose


"আমি প্রায় ভাবি—বাঙালী কবে মানুষ হইবে—কবে ছার টাকার লোভ ছাড়িয়ে উচ্চ বিষয়ে ভাবিতে শিখিবে—কবে সকল বিষয়ে নিজের পায়ের উপর দাঁড়াইতে শিখিবে—কবে একত্র শারীরিক, মানসিক ও আধ্যাত্মিক উন্নতি সাধন করিতে শিখিবে—কবে অন্যান্য জাতির ন্যায় নিজের পায়ের উপর দাঁড়াইয়া নিজেকে “মানুষ” বলিয়া পরিচয় দিতে পারিবে।


আজকাল বাঙ্গালীদিগের মধ্যে অনেকে পাশ্চাত্য শিক্ষা পাইয়া নাস্তিক ও বিধর্মী হইয়া যায়—দেখিলে বড় কষ্ট হয়। আজকাল বাঙ্গালীরা বাবুয়ানি ও বিলাসিতার স্রোতে ভাসিয়া গিয়া নিজের মনুষ্যত্ব হারাইতেছে–দেখিলে বড় কষ্ট হয়। আজকাল বাঙ্গালীরা নিজের জাতীয় পরিচ্ছদকে ঘৃণা করিতে শিখিয়াছে–দেখিলে বড় কষ্ট হয়। বাঙ্গালীদের মধ্যে সবল, সুস্থ এবং বলিষ্ঠকায় লোক খুব কমই আছে—দেখিলে প্রাণে কষ্ট হয়। এবং সর্বোপরি বাঙালীদিগের মধ্যে প্রত্যহ ভগবানের নাম করে এরূপ ভদ্রলোক খুব কমই আছে –দেখিলে প্রাণে বড় কষ্ট হয়। বাঙ্গালীরা আজকাল হইয়াছে—বিলাসিতাপ্রিয়, পরচর্চাকারী, কুটিলহৃদয়, পর-সুখদ্বেষী এবং মনুষ্যত্ববিহীন

—মা, ভাবিলে বড় কষ্ট হয়।


আমাদের এই ঈশ্বরদত্ত সবল দেহ আছে কিন্তু আমরা শারীরিক পরিশ্রমকে "ছোটলোকের কাজ" বলিয়া ঘৃণা করি, কারণ আমরা "বাবুলোক" | আমরা সব কাজে চাকরকে হাঁক মারি, আমাদের হাত পা চালাইতে যে কষ্ট হয়–কারণ আমরা যে "বাবু" | গ্রীষ্মপ্রধান দেশে জন্মিলেও আমরা গ্রীষ্ম সহ্য করিতে পারি না কারণ আমরা "বাবু" | আমরা সামান্য শীতকে এত ভয় করি যে সর্বাঙ্গ বোঝায় চাপাইয়া রাখি কারণ আমরা "বাবু" | আমরা সর্বত্র "বাবু" বলিয়া পরিচয় দিই কারণ আমরা "বাবু", কিন্তু বাস্তবিকপক্ষে আমরা মনুষ্যত্বহীন মনুষ্যরূপধারী পশু | পশু অপেক্ষাও আমরা অধম,কারণ আমাদের জ্ঞান ও বিবেক আছে, পশুদিগের তাহাও নাই | জন্মাবধি সুখের এবং বিলাসিতার মধ্যে লালিত-পালিত হওয়াতে আমরা তিলমাত্র কষ্টসহিষ্ণু হইতে পারি না–এই কারণে ইন্দ্রিয়গণকে আমরা জয় করিতে পারি না–সারাজীবন ইন্দ্রিয়ের দাস হইয়া আমরা এক দুর্বহ জীবনভার বহন করি |


আমরা পড়িতেছি—সম্মুখে যদি চাকরীর এবং অর্থের লোভ থাকে—তাহা হইলে কি লেখাপড়া— তাহা হইলে কি মনুষ্যত্বের অধিকারী হইতে পারা যায় ? মা বাঙ্গালী কি কখনও মানুষ হইতে পারিবে ? আপনার কি মত ? মা, আমরা এবং আমাদের দেশ দিন দিন অধঃপতনে যাইতেছে। কে উদ্ধার করিবে ? একমাত্র উদ্ধারকর্তা—বঙ্গজননী–বঙ্গমাতা যদি বঙ্গসন্তানকে নতুনভাবে প্রস্তুত করিতে পারেন—তাহা হইলে পুনরায় বাঙ্গালী মানুষ হইবে।"



8 views0 comments
bottom of page